1. admin@ukbanglanews.com : UK Bangla News : Tofazzal Farazi
  2. kashemfarazi8@gmail.com : Abul Kashem Farazi : Abul Kashem Farazi
  3. tuhinf24@gmail.com : Firoj Sabhe Tuhin : Firoj Sabhe Tuhin
বাইডেনকে জাতির কাছে ক্ষমা চাইতে হবে: ট্রাম্প - UK বাংলা News
রবিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২৩, ০৮:৫৩ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
সরকারকে বিদ্যুৎ, গ্যাস ও তেলের মূল্য বৃদ্ধির ক্ষমতা দিয়ে সংসদে বিল নেপালে বিমান দুর্ঘটনায় দুজন জীবিত উদ্ধার, হাসপাতালে ভর্তি শৈত্যপ্রবাহ বিস্তারের আভাস এবার গ্রাহক পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম ১৫ শতাংশ বাড়ানোর সুপারিশ রমজানে নিত্যপণ্যের দাম বাড়বে না: বাণিজ্যমন্ত্রী ঢাকার মেট্রোরেলের বাকি প্রকল্পগুলোর অগ্রগতি কতটা হয়েছে? সাইক্লোন বোমায় বিপর্যস্ত উত্তর আমেরিকা, লাখ লাখ মানুষের ঘরে বিদ্যুৎ নেই কেইনের পেনাল্টি মিস, ইংল্যান্ডকে বিদায় করে সেমিফাইনালে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স রুশ বিমানঘাঁটিতে বিস্ফোরণের পর ইউক্রেনের শহরগুলোতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চার দিনে ২ হাজার ২২৬টি অভিযান, গ্রেফতার ১৩০৯

বাইডেনকে জাতির কাছে ক্ষমা চাইতে হবে: ট্রাম্প

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২৩ আগস্ট, ২০২১
  • ২১২ বার

‘সেভ আমেরিকা’ নামের নিজস্ব প্ল্যাটফর্ম থেকে দেওয়া সবশেষ বিবৃততে ট্রাম্প বলেন, বেসামরিক লোকজনকে সরিয়ে আনার আগেই আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের জন্য বাইডেনের ক্ষমা চাওয়া উচিত। একই সঙ্গে আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্রের অত্যাধুনিক অস্ত্রশস্ত্র সরিয়ে আনার আগেই মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের জন্যও তিনি বাইডেনকে জাতির কাছে ক্ষমা চাইতে বলেন।

সাবেক প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেন, আফগানিস্তানে থাকা আমেরিকার ৮৫ বিলিয়ন ডলারের অত্যাধুনিক সব অস্ত্রশস্ত্র এখন তালেবানের হাতে। আধুনিকতম প্রযুক্তির এসব অস্ত্রশস্ত্র এখন সহজেই চীন ও রাশিয়ার করায়ত্ত হবে। এসব দেশ এই অস্ত্র দেখে নিজেরাই তা তৈরি করতে পারবে।

এদিকে, ফক্স নিউজকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ট্রাম্প বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের আফগানিস্তান ছেড়ে আসার ঘটনাটি খুবই ভালো। কিন্তু মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের পদক্ষেপ বাস্তবায়ন নিয়ে বাইডেনের চেয়ে মন্দ কাজ আমেরিকার ইতিহাসে কেউ কখনো করেননি।

ট্রাম্প বলেন, আফগানিস্তানের এখনকার ঘটনা আমেরিকার ইতিহাসে সবচেয়ে লজ্জাজনক হিসেবে চিহ্নিত হয়ে থাকবে।

ট্রাম্প যখন বাইডেনের সমালোচনা করে তাঁর পদত্যাগ দাবি করেছিলেন, তখনই এর জবাব দেন বর্তমান মার্কিন প্রেসিডেন্ট। বাইডেন বলেন, তাঁর পূর্বসূরি প্রেসিডেন্ট (ট্রাম্প) তালেবানের সঙ্গে সমঝোতা করে আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। তিনি কেবল সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করেছেন।

ট্রাম্প ক্ষমতা ছাড়ার সময়ই তালেবানকে শক্তিশালী করে রেখে গেছেন বলে দাবি করেছেন বাইডেন। নিজের অবস্থান ব্যাখ্যা করতে গিয়ে বাইডেন বলেন, নতুন করে সেনা পাঠিয়ে আফগান যুদ্ধ চালিয়ে যাওয়া বা সংঘাত থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে সরিয়ে আনার মধ্যে একটি বিষয়কে বেছে নিতে হয়েছে তাঁকে। আফগানিস্তানে আরও বেশি সময় মার্কিন সেনা থাকলেও ফলাফলে কোনো পার্থক্য হতো না।

মার্কিন সমর্থনপুষ্ট আফগান সরকারের নিরাপত্তা বাহিনী কার্যত কোনো প্রতিরোধ ছাড়াই তালেবানের কাছে আত্মসমর্পণ করেছে। ফলে যুক্তরাষ্ট্রের দেওয়া অনেক অত্যাধুনিক যুদ্ধ সরঞ্জাম তালেবানের হাতে চলে গেছে। এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে উদ্বেগ সৃষ্টি হয়েছে।

২৫ জন মার্কিন সিনেটর আফগানিস্তানে থেকে যাওয়া অস্ত্রশস্ত্র ও যুদ্ধসরঞ্জামের বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য চেয়েছেন প্রতিরক্ষা বিভাগের কাছে। আমেরিকার জনগণের করের অর্থের অস্ত্রশস্ত্র এভাবে তালেবানের হাতে যাওয়ায় সিনেটররা উদ্বেগ ও অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2022 UK বাংলা News
Design & Developed By SSD Networks Limited
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
error: Content is protected !!