1. admin@ukbanglanews.com : UK Bangla News : Tofazzal Farazi
  2. kashemfarazi8@gmail.com : Abul Kashem Farazi : Abul Kashem Farazi
  3. tuhinf24@gmail.com : Firoj Sabhe Tuhin : Firoj Sabhe Tuhin
বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ০৮:৩৬ অপরাহ্ন

এক শিক্ষার্থীকে চার ডোজ করোনা ভ্যাকসিন দেওয়ার অভিযোগ

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী, ২০২২
  • ৭২ বার

এক শিক্ষার্থীকেই পরপর চারবার করোনা ভ্যাকসিন দেয়ার অভিযোগ উঠেছে নেত্রকোনার হাওরাঞ্চল মদনে। ৮ম শ্রেণিতে পড়ুয়া আবিদা বিনতে আজিজ নামের শিক্ষার্থীকে এক সাথেই চারটি ডোজ দেওয়া হয়েছে বলে দাবি করেন শিক্ষার্থীর মা রাজিয়া সুলতানা। মায়ের এমন অভিযোগের পর ওই শিক্ষার্থীকে মদন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পর্যবেক্ষনে রাখা হয়েছে। শনিবার (১২ ফেব্রুয়ারী) নেত্রকোনা জেলার হাওরাঞ্চল মদন উপজেলায় এই ঘটনাটি ঘটেছে। 

ওই শিক্ষার্থী মদন পৌরসভার মাহমুদপুর গ্রামের আজিজুল হকের মেয়ে ও মদন শহীদ স্বরণিকা পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির ছাত্রী।

জানা গেছে, সারাদেশের অংশ হিসেবে নেত্রকোনার মদনেও চলছে টিকাদান কার্যক্রম। এরই ধারাবাহিকতায় মদনে স্কুল শিক্ষার্থীদের মাঝে প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজ টিকাদান অব্যাহত রয়েছে।

শনিবার আবিদা ফাইজারের কোভিড ১৯ দ্বিতীয় ডোজ নিতে এলে এক সাথে তাকে চারটি ডোজ দেওয়া হয়েছে বলে দাবি করেন তার মা। তাৎক্ষণিক শিশুটির মা বিষয়টি হাসপাতালের চিকিৎসকদের জানালে তারা ওই শিক্ষার্থীকে পর্যবেক্ষনে নেয়।

শিক্ষার্থী আবিদা বিনতে আজিজ জানায়, আমি ২য় টিকা নিতে শনিবার সকালে মদন স্বাস্থ্য কেন্দ্রে যাই। কাগজপত্র নার্সদের কাছে দিলে তারা আমাকে একটি চেয়ারে বসান। পরে আমাকে পর পর ৪ টি টিকা দেন। কেন আমাকে পরপর চারটি টিকা দেয়া হল তা জানতে মাকে জানাই। পরে মা ডাক্তারকে বিষয়টি বললে ডাক্তার আমাকে হাসপাতালে বেডে রেখে পর্যবেক্ষণে থাকতে বলেন।

শিক্ষার্থীর মা রাজিয়া সুলতানা বলেন, টিকা দেয়ার সময় আমি বাহিয়ে অপেক্ষা করছিলাম। মেয়েটি টিকা দিয়ে বের হয়ে আমাকে জানায়। আমি বিষয়টি ডাক্তারকে বলেছি। মেয়েটি মানসিক ভাবে ভেঙে পড়ছে। তাকে ডাক্তার হাসপাতালে অবজারভেশনে রেখেছেন।

মদন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আরএমও ডাক্তার রিফাত সাইদ জানান, মায়ের অভিযোগের প্রেক্ষিতে শিশুটিকে হাসপাতালে পর্যবেক্ষনে রাখা হয়েছে। শিশুটির অবস্থা বর্তমানে ভালো আছে।

স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের কর্মকর্তা ডাক্তার হুমায়ুন কবির বলেন, এক শিশুকে চারটি টিকা দেয়া কোন ভাবেই সম্ভব নয়। কারণ একটি টিকা বাড়তি নষ্ট হলে তা আরেকজনের কম পড়বে। শিশুটিকে হাসপাতালে পর্যবেক্ষনে রাখা হয়েছে। তবে কোন নার্স টিকা দিয়েছে শিশুটি বলতে পারছে না।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2022 UK বাংলা News
Design & Developed By SSD Networks Limited
error: Content is protected !!